Bangla News Line Logo
bangla fonts
১০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৭, মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০, ৪:০২ অপরাহ্ণ
facebook twitter google plus rss
সর্বশেষ
হুমায়ূন আহমেদের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন সাম্প্রদায়িক সহিংসতা বন্ধে কঠোর পদক্ষেপ চাই- শ্যামলেন্দু পাল গৃহহীনদের জমি দানের ঘোষণা সাংসদ রেবেকার নেত্রকোণায় ধনু নদীতে অবৈধ পন্থায় মাছ আহরণ, জাল জব্দ নেত্রকোণায় বঙ্গবন্ধু কল্যাণ পরিষদের নতুন নেতৃত্বের সভা

হুমায়ূন আহমেদের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন


নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলানিউজলাইন ডটকম:11:47:49 PM11/21/2020


হুমায়ূন আহমেদের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন

প্রয়াত নন্দিত কথাসাহিত্যিক চলচ্চিত্র নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের ৭২তম জন্মকার্ষিকী নেত্রকোণায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালিত হয়েছে।

নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলায় লেখকের পিতৃভূমি কুতুবপুর গ্রামে তার নিজের হাতে গড়া স্কুল শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠে বিদ্যালয়টির আয়োজনে শনিবার দিনভর চলে নানা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে কোরআন খতম, পতাকা উত্তোলন , বর্ণাঢ্যর ‌্যালী, জন্মদিনের কেককাটা , হুমায়ূন আহমেদের প্রতিকৃতিকে পুস্পস্তবক অর্পন, নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

হুমায়ূন আহমেদ গ্রামের বাড়ি কুতুবপুর তার বাবার স্মৃতি রক্ষার্থে গ্রামে ২০০৬ সালে এই স্কুলটি নিজ হাতে গড়ে তোলেন। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এসএসসির ফলাফল বরাবরই ভালো করে আসছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা। এবার দিনব্যাপী হুমায়ূন আহমেদের জন্ম উৎসব পালন করা হয়।সকালে স্কুলে কোরআনখতম, জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পর লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন ওস্থানীয় সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল কেক কেটে দিনের কর্মসূচি শুরু করেন।পরে তারা শিক্ষক, শিক্ষার্থী .এলাকাবাসিকে নিয়ে হুমাযূনের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।এরপর স্কুলপ্রাঙ্গন থেকে একটি‌  ্যালী বের হয়ে কুতুবপুর গ্রামের প্রধান সড়ক ঘুরে আবার স্কুলে এসে শেষ হয়।লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অসীম কুমার উকিল। সভায় অন্যদেরমধ্যে বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, কেন্দুয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল কাদির ভুইয়া, শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামানসহ অন্যরা।শেষে সাংস্কৃতিক পরিবেশনা হয়।অনুষ্টানে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, লেখকের স্বজন, কুতুবপুরবাসী ছাড়াও হুমায়ূন ভক্তদের উপচে পড়া ভিড়ছিল।এছাড়াও বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বসেছে গ্রামীন মেলা । লেখকের জন্মউৎসবে এসে তার ভক্তরা এধরনের অনুষ্ঠান যাতে প্রতি বছরই অনুষ্ঠিত হয় তারf দাবি জানান।অনুষ্ঠানে আসা এলাকাবাসি কামরুল ইসলাম বলেন, প্রানের মানুষ হুমায়ূন আহমেদের অনেক স্মৃতি আজও তাড়িয়ে বেড়ায়। হুমাযূন আহমেদের অনেক অজানা বিষয় জানা গেছে আলোচনা সভা থেকে। বিশেষ করে তার লেখায় মুক্তিযুদ্ধের আঙ্গিককে নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করবে।সকাল থেকে বিকাল নাগাদ কর্মসূচিতে অংশ নেয়া মজিবুরর হমান বলেন, নতুনদের মাঝে হুমাযূন আহমেদকে তুলে ধরা জরুরি।আর একারণেই প্রতিবছর এধরণের আয়োজন করা দরকার।বর্তমানে স্কুলটি এমপিওভুক্ত করায় সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান বলেন, আজ হুমায়ূন স্যারের জন্মদিনে তার স্বপ্নের এই স্কুলে নতুন ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর ৮০লাখ ৭৫ হাজার টাকা ব্যায়ে এইভবনটি নির্মাণ করবে। দিনভর আয়োজনে প্রচুর লোকসমাগম হলেও আমরা করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কর্মসূচি উদযাপন করেছি।

হুমায়ূনপত্নী স্তপতি মেহের আফরোজ শাওন বলেছেন, হুমাযূন আহমেদ যেভাবে স্কুলটিকে গড়ে তুলতে চেয়েছিলেন সেভাবেই স্কুলটি এগিয়ে যাচ্ছে।ছাত্র, ছাত্রী দিন দিন বাড়ছে।ফলাফল ভালকরছে।উন্নত ল্যাব, কম্পিউটার ল্যাব, ভবন হচ্ছে। গুটিগুটি করে আমরা স্বপ্নের দিকে যাচ্ছি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ও আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমারউকিল বলেন, হুমায়ূন আহমেদ আমাদের গর্বিত সন্তান, কৃতি মানুষ। তার কর্মময় জীবন ও আদর্শ বিশ্বময় ছড়িয়ে দিতে চাই।নতুনদের আলোকিত করতে হুমাযূন পাঠ জরুরি। তার স্বপ্নের স্কুলের উন্নয়নে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নেবেন বলেন তিনি।

 

বাংলানিউজ লাইন.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: