Bangla News Line Logo
bangla fonts
৪ ভাদ্র ১৪২৬, সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯, ২:৪০ অপরাহ্ণ
facebook twitter google plus rss
সর্বশেষ
জানিয়ার চর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নানা অনিয়মের অভিযোগ নেত্রকোণায় পানিতে ডুবে বৃদ্ধের মৃত্যু কেন্দুয়ায় জমি চাষের সময় বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু কেন্দুয়ায় বিলে বেড়াতে গিয়ে নৌকা ডুবে শিশুর মৃত্যু নেত্রকোণায় কেরাম খেলা নিয়ে পিটুনিতে যুবক নিহত

ময়মনসিংহ শহরকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা, ভাবনায়‘নিষিদ্ধ পল্লী’ ***



ময়মনসিংহ শহরকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা, ভাবনায়‘নিষিদ্ধ পল্লী’ ***

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, বাংলানিউজলাইন ডটকম:

দেশের অষ্টম বিভাগ ময়মনসিংহ শহর উন্নয়নে ঢেলে সাজানোর পরিক্ল্পনা নেয়া হয়েছে।একইসাথে “শহরের প্রাণকেন্দ্রে থাকা ‘নিষিদ্ধ পল্লী’র বাসিন্দাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার ভাবনাচিন্তাও চলছে ।এসব পরিকল্পনা  বাস্তবায়নও হবে দ্রুততার সাথে বলেছেন ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিন।

 

সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে আছে—হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী রাস্তার দুই পাশে সরকারি জায়গার সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ফুটপাত দখলমুক্তকরণ, যানজট কমাতে অবৈধ ইজিবাইক চলাচল বন্ধ করা, মোড়ে মোড়ে ফ্রি স্পেস তৈরি, পৌরসভা আবর্জনামুক্তকরণ, শহরের কয়েকটি রাস্তা বিভাগীয় মানের করে প্রশস্তকরণ ও জলাবদ্ধতা কমাতে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ বেশ কিছু সিদ্ধান্ত।

ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সমন্বিত এক সভায় এসব পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

সভার সিদ্ধান্তমতে এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবে পৌরসভা, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি), পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সড়ক বিভাগ।

বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিন বলেন, “শহরের প্রাণকেন্দ্রে একটি ‘নিষিদ্ধ পল্লী’ আছে। এ পল্লীর বাসিন্দাদের শহরের বাইরে পুনর্বাসন করে তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার বিষয়েও সভায় আলোচনা হয়েছে। সব সমস্যা রাজনীতিক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মীসহ সবার সহযোগিতা নিয়ে সমাধান ও বাস্তবায়ন করব।”

সালেহ উদ্দিন বলেন, ‘ময়মনসিংহ বাইপাস সড়ক থেকে চরপাড়া হয়ে গাঙ্গিনার পাড়, খাগডহর থেকে টাউন হল মোড় হয়ে পাটগুদাম, টাউনহল মোড় খেকে কালীবাড়ি হয়ে পাটগুদাম সড়ক প্রশস্তকরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। যানজট কমাতে পাটগুদাম ব্রিজের পশ্চিম পাড় থেকে বাইপাসমুখী ও বিভিন্ন উপজেলায় অটো চলাচলের জন্য আলাদা ইন্টারসেকশন (শর্টকাট রাস্তা/বিকল্প রুট) তৈরি করা হবে। শহরের রাস্তার নকশা অনুযায়ী প্রকৃত দৈর্ঘ্য নিরূপণ করে সীমানা চিহ্নিত পিলার স্থাপন ও প্রশস্তকরণের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে।’

সামান্য বৃষ্টি হলেই ময়মনসিংহ শহরে জলজট সৃষ্টি হয়। এমনকি বিভাগীয় অফিসের সামনে, পানি উন্নয়ন বোর্ড চত্বর ও জেলা প্রশাসনের প্রবেশপথে একফুট জলজট সৃষ্টি হয়।

সালেহ উদ্দিন  আরো বলেন, ‘এ সমস্যা সমাধানে শহরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার সঙ্গে সংযোগ স্থাপনকারী ভরাট খাল ও ড্রেন পরিষ্কার করা হবে। সেনানিবাসের ভেতর স্থাপিত আন্ডারগ্রাউন্ড ড্রেনেজ ব্যবস্থার পরিবর্তে উন্মুক্ত প্রশস্ত ড্রেন নির্মাণ করা হবে।’

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, ‘শহরের ১৯টি ওয়ার্ডকে পরিচ্ছন্ন ও আবর্জনামুক্ত করার জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে। এসব কাজ বাস্তবায়ন করবে ময়মনসিংহ পৌরসভা ও সড়ক বিভাগ। ব্রহ্মপুত্র নদের পূর্ব ও  পশ্চিম পাড়ে অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করে দখলমুক্ত করার কাজ বাস্তবায়ন করবে পানি উন্নয়ন বোর্ড। চিহ্নিত সমস্যার মধ্যে এলজিইডি তাদের কর্মপরিকল্পনার আওতায় কাজ করবে।’

বিভাগের দৃশ্যমান উন্নয়নের জন্য নেওয়া পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা দরকার বলে মনে করেন বিভাগীয় কমিশনার।

 

বাংলানিউজ লাইন.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: