Bangla News Line Logo
bangla fonts
১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, মঙ্গলবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৩:২৪ অপরাহ্ণ
facebook twitter google plus rss
সর্বশেষ
কলমাকান্দায় পাঁচগাও বাজারে জমিতে ভূয়া কবুলতের অভিযোগ করোনাভাইরাস : ভারতে প্রথম হানা বিএনপি নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায় : কাদের পুরনো প্রেমে মজেছেন জাহ্নবী সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় তিন বাংলাদেশি নিহত

কেন্দুয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ: প্রতিবাদে মানববন্ধন


নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলানিউজলাইন ডটকম:1:43:16 PM01/22/2020


কেন্দুয়ায় মাদ্রাসা  ছাত্রী ধর্ষণ: প্রতিবাদে মানববন্ধন

নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় মাদ্রাসা শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ  হয়েছে।

বুধবার সকাল ১১টার দিকে কেন্দুয়া উপজেলার রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে রোয়াইলবাড়ী ইউনিয়নের আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাতাব উদ্দিন, রোয়াইলবাড়ী ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক আলী উছমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইখ সিরাজসহ অন্যরা।

এসময় মানববন্ধনে শিক্ষক মাহাতাব উদ্দিন বলেন,  রোয়াইলবাড়ী কওমী মাদ্রাসার সুপার আব্দুল হালিম সাগর ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। এই সুপার শিক্ষক নামের নরপশু। তাকে দ্রুত গ্রেপ্তাার করে আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানান। 

মানববন্ধনে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ এলাকার নানা শ্রেণী পেশার লোকজন অংশ নেন।

কেন্দুয়ার রোয়াইলবাড়ী বাজারে প্রতিষ্ঠিত আশরাফুল উলুম জান্নাতুল মাওয়া মহিলা মাদ্রাসাটির  প্রতিষ্ঠাতা সুপার আব্দুল হালিম সাগরের বিরুদ্ধে মাদ্রাসার ওই ছাত্রী (১২)  ধর্ষিতা  হয়ে ৪ মাসের অন্ত:সত্বা হওয়ার অভিযোগ থানায় মামলা হয়।

কেন্দুয়া থানার ওসি রাশেদুজ্জামান জানান,  এ ঘটনায় রোববার (১৯ জানুয়ারী) কেন্দুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন ছাত্রীটির বাবা।

ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা জানান, গত বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারী) রাতে হঠাৎ মেয়েটির পেটে ব্যাথা হয়। এক পর্যায়ে রক্তক্ষরন হলে অন্ত:সত্বা বিষয়টি নজরে আসে। মেয়েকে জিজ্ঞেস করলে সে জানায়, কয়েক মাস পূর্বে মাদ্রাসার হুজুর আব্দুল হালিম সাগর তাকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে।  অতিরিক্ত রক্তক্ষরনের কারণে মারাত্মক অসুস্ত হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বর্তমানে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন  রয়েছে ছাত্রীটি।

ওসি রাশেদুজ্জামান জানান, ভিকটিমের বাব বাদী হয়ে ওই মাদ্রাসার সুপার আব্দুল হালিম সাগরকে আসামী করে  নারী শিশু আইনে মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযুক্ত ধর্ষককে  ধরতে অভিযান চালাচ্ছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পেমই তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উজায়ের আল মাহমুদ আদনান জানান, আসামীর বাড়ী ঘরে তালা দিয়ে পালিয়েছে। তাকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

বাংলানিউজ লাইন.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: