Bangla News Line Logo
bangla fonts
১২ মাঘ ১৪২৭, মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ২:৪১ পূর্বাহ্ণ
facebook twitter google plus rss
সর্বশেষ
গৃহহীনদের লাঞ্ছনা দিনের অবসান কেন্দুয়া-মোহনগঞ্জে নৌকার বিপুল জয়ে প্রশান্ত’র অভিনন্দন নেত্রকোণা পৌরসভা: ইভিএমের ভোটে ৬৬ প্রার্থীতা মোহনগঞ্জ পৌরসভায় আ. লীগ প্রার্থী জয়ী কেন্দুয়া পৌরসভা আবারো আ. লীগের দখলে

“আমার স্বামীরে আইন্যা দেও”


নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলানিউজলাইন ডটকম:


“আমার স্বামীরে আইন্যা দেও”

“আমার স্বামীরে আইন্যা দেও। আমার কি সর্বনাশ অইয়া গেলগো।আমি অহন কারে লইয়া তাকবাম।বাচবাম কেমনে ।” এভাবেই বিলাপ করতে করতে বার বার মূর্ছা যাচ্ছিলেন হাওয়া বেগম। নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলার পেচলেঞ্জুরী গ্রামের রাজমিস্ত্রী নিজাম উদ্দিনের স্ত্রী হাওয়া বেগম।

স্বামী নিজাম উদ্দিন আজ রবিবার দুপুরে ময়মনসিংহ-নেত্রকোণা সড়কে ময়মনসিংহের  তারাকান্দার গাছতলা বাজার এলাকায় বাসের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে তিনি প্রাণ হারান। একই সঙ্গে নিহত হন পরিবারটির ৬জন।

হাওয়া বেগমের ১০ বছরের এক ছেলে ও ৫ বছরের এক মেয়ে রয়েছে। পিতৃহারা দুই শিশুকে অন্য স্বজনদের সামলাতে দেখা গেছে। শিশু দুইটি বার বার ছুটে যাচ্ছিল বাড়ির আঙ্গিণায় সারি সারি করে রাখা মরদেহগুলোর কাছে। সেখানে তারা তাদের বাবাকে খুঁজছিল।

নিহত নিজাম উদ্দিনের বোন জুলেখা খাতুন।তিনিও ঘটনাস্থলেই মারা যান। জুলেখার বিয়ে হয়েছিল ময়মনসিংহের গৌরীপুর ‍উপজেলার সিধলা গ্রামের শিক্ষক বাচ্চু মিয়ার সাথে। তাদের ৮ ও ৪ বছরের দুই মেয়ে। এই দুই শিশুও তাদের মায়ের কাছে ছুটে যাচ্ছে। তারা এখনও বুঝতে পারছে না তাদের মা আর কথা বলবে না। স্ত্রীর মৃত্যুতে শোকে পাথর হয়ে যাওয়া বাচ্চু মিয়াও তার সন্তানদের বুঝাতে পারছেননা।

আরেক নিহতজন নিজাম উদ্দিনের ভাবি জোছনা খাতুন।তার স্বামী আজিম উদ্দিন।  তিনিও বাকরুদ্ধ হয়ে আছেন।

তাছাড়াএকই সাথে মারা যান, নিজাম উদ্দিনের আরেক ভাই মৌলানা ফারুখ আহমেদ, ফারুখ আহমেদের স্ত্রী মাসুমা আক্তার ও তাদের তিনদিন বয়সী প্রথম সন্তান।

বাড়িটিতে নিহতদের আত্মীয় স্বজন, জনপ্রতিনিধিসহ এলাকাবাসির ভীড় । সবার মুখে মুখে আলোচনায় এই মৃত্যুর মিছিলের করুণ বর্ণনা। অনেকেই স্মৃতিচারণ করছেন।কেউ কাঁদছেন। কেউবা সান্তনা দেয়ার চেষ্টা করছেন।

নিহত নিজাম উদ্দিনের ভাতিজা মাসুম বলেন, দুরের আত্মীয়-স্বজনদের আসার অপেক্ষায় আছি। তারা শেষবারের মতো দেখবেন।আগামীকাল সোমবার দাফন করা হবে। তিনি বলেন, আমাদের পরিবারটি সড়ক দুর্ঘটনায় শেষ হয়ে গেছে। অথচ আজ আমাদের আনন্দের দিন ছিল। আমার চাচার ছেলে হয়েছিল শুক্রবারদিন। ময়মনংসিংহের ক্লিনিক থেকে বাড়িতে আসতেছিল। তাদের আর বাড়ি আসা হলো না। অসলো তবে লাশ হয়ে।

নিজাম উদ্দিনের ভাই আজিম উদ্দিন বলেন, আমার স্ত্রীও গেছে। ভাই-ভাবীরাও  গেছে।আমাদের আর কিছু রইলো না। এরকম সর্নাশ যেন আর কারও না হয় বলেন তিনি।

স্থানীয়্  আগিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, যান বাহনের চালকেরা যদি সতর্কতার সাথে চালান তবে এধরণের মৃত্যু এড়ানো সম্ভব। এক ঝটকায় পরিবারটির অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। তাদের যা ক্ষতি হয়েছে তা কিছু দিয়েই পোষানো সম্ভব না।

 শ্যামগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বলেন,নয়ন দাস বলেন, বাসটি জব্দ করা হয়েছে। স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। বাসের পলাতক চালককে গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে।

বাংলানিউজ লাইন.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: